MAMS এর লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য:
>> আধুনিক ও নৈতিক শিক্ষার সমন্বয়ে জাতীয় পাঠ্যক্রম অনুসরণ করা।
>> শিক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থীর সুপ্ত প্রতিভা ও মেধার পরিপূর্ণ বিকাশ সাধন করা।
>> শিক্ষার্থীদের জ্ঞান, দক্ষতা ও নৈতিক মূল্যবোধে উজ্জীবিত করে প্রকৃত অর্থে একজন ‘‘মানুষ’’ ও দেশের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলা।
>> আত্মনির্ভরশীল দক্ষ প্রজন্ম গড়ে তোলা।
 
     
 
MAMS এর বৈশিষ্ট্যসমূহ:
>> জাতীয় পাঠ্যক্রম অনুসরণে বর্তমানে শুধু মাতৃভাষার মাধ্যমে পাঠদান।
>> শিক্ষার্থীকে আন্তর্জাতিকভাবে যোগ্য হিসেবে গড়ে তোলার জন্য ইংরেজি শিক্ষায় সর্বোচ্চ গুরুত্বপ্রদান।
>> মুসলিম শিক্ষার্থীদেরকে নুরানি বোর্ড কর্তৃক নিয়োজিত শিক্ষক দ্বারা জরুরী মাসায়েল সহ শুদ্ধভাবে পবিত্র কোরআন পাঠ শিখানো।
>> বিশেষ পদ্ধতিতে শিক্ষার্থীকে ইংরেজি ও আরবি ভাষার কথোপকথনে যোগ্য করে তোলা।
>> প্রযুক্তি নির্ভর আধুনিক শিক্ষাদান পদ্ধতির অনুসরণ।
>> সুপরিকল্পিত পাঠ প্রণয়ন ও অনুসরণ।
>> সীমিত আসনে উন্নত শ্রেণি ব্যবস্থাপনা।
>> যোগ্য, দক্ষ ও অভিজ্ঞ বিষয়ভিত্তিক শিক্ষক মন্ডলী দ্বারা পাঠ দান।
>> সেমিস্টার ভিত্তিক পাঠ দান ও মূল্যায়ন।
>> প্রাত্যহিকভাবে খবংংড়হ চষধহ অনুযায়ী শিক্ষাদান ও শিক্ষার অগ্রগতি সাধনে স্কুল শেষে শিক্ষক গণের মত বিনিময়, পর্যালোচনা ও প্রশিক্ষণ দান সভা।
>> বিশেষ ব্যবস্থায় শিক্ষার্থীর হাতের লেখা অধিকতর সুন্দর করার প্রশিক্ষণ দান।
>> ঊফঁপধঃরড়হধষ ঈড়ঁহংবষরহম অহফ এঁরফধহপব এর মাধ্যমে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর শিক্ষা সর্ম্পকিত বিষয়টি সার্বক্ষণিক নজরে রাখা।
>> ক্লাসে কোন শিক্ষার্থীর আকস্মিক অনুপস্থিতিতে তাৎক্ষণিকভাবে অভিভাবকের সাথে ফোনে আলাপ করে অনুপস্থিতির কারণ অনুসন্ধান ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ।
>> স্কুল কর্তৃপক্ষ রুটিন মাফিক সরাসরি শিক্ষার্থীর মা-বাবার সাক্ষাৎকার গ্রহণ করে শিক্ষার্থীর খাবারদাবার, পোষাক পরিচ্ছদ, আচার আচরণ ও বাড়িতে থাকাকালীন লেখাপড়া সর্ম্পকিত বিশেষ মনোযোগ সম্পর্কে অবগত হন।
>> নিয়মিতভাবে প্রজেক্টরের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মননশীলতার বিকাশ উপযোগী বিনোদন মূলক চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা।
>> অভিজ্ঞ চিকিৎসক দ্বারা প্রত্যেক শিক্ষার্থীর স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা।